কুমিল্লার চার উপজেলা নির্বাচনের তৃতীয় দফায় প্রতীক বরাদ্দ

বাংলা নিউজ ডেস্কঃ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তৃতীয় ধাপে কুমিল্লার বুড়িচং, ব্রাক্ষনপাড়া, মুরাদনগর ও দেবিদ্বার উপজেলায় প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী ৪৪ প্রার্থীর মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ করা হয়েছে। আজ সোমবার সকাল ১১টায় জেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয়ে রিটার্নিং কর্মকর্তা মোহাম্মদ দেলোয়ার হোসেন প্রার্থীদের হাতে প্রতীক তুলে দেন। মুরাদনগর উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে লড়ছেন তিনজন, বুড়িচং উপজেলায় চারজন, ব্রাক্ষনপাড়া উপজেলায় চারজন ও দেবিদ্বার উপজেলায় তিনজন। এছাড়া চার উপজেলায় ভাইস-চেয়ারম্যান পদে ১৭ জন ও মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান পদে ১৩ জন নির্বাচনে চূড়ান্তভাবে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন। রিটার্নিং কর্মকর্তা দেলোয়ার হোসেন প্রার্থীদের উদ্দেশ্যে জানান, প্রতীক পাবার পর থেকে প্রার্থীরা সবাইকে নির্বাচনী বেছে নিষেধ মেনে প্রচার-প্রচারণা চালাতে হবে। নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙ্গ করা হলে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। যেহেতু জনপ্রতিনিধি নির্বাচন তাই প্রার্থীদেরকে সাধারণ মানুষের যেন কোন ভোগান্তি না হয় সে ব্যাপারে নিজেদেরই সচেষ্ট থাকতে হবে। কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলা থেকে চেয়ারম্যান প্রার্থী ঘোড়া প্রতিকের আবু তৈয়ব অপি জানান, আমি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের একজন কর্মী। তবে আমি দল-মত নির্বিশেষে ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার সকলের সেবা করতে চাই। আমার বাবা ও চাচাও এই উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ছিলেন। আশা করি ব্রাহ্মণপাড়া বাসী আমাকে দিয়ে নির্বাচিত করবেন। মুরাদনগর উপজেলার থেকে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আনারস প্রতীকের আহসানুল আলম কিশোর জানান, এবার দলীয় প্রতীক ছাড়াই নির্বাচন হচ্ছে। সাধারণ মানুষ একজন প্রার্থী নিজস্ব গুণাবলীর দিকেই বেশি প্রাধান্য দিবেন। আমি বর্তমানেও চেয়ারম্যান আছি, মানুষের সেবা করে যাচ্ছি। তাই আমি মনে করি মুরাদনগরবাসী আমাকে আবারও চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী করবেন। প্রতিক বরাদ্ধের পর মাঠে প্রচারনা শুরু করেছেন প্রার্থীরা। উল্লেখ্য, এ চার উপজেলায় ভোট ২৯ মে।উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তৃতীয় ধাপে কুমিল্লার বুড়িচং, ব্রাক্ষনপাড়া, মুরাদনগর ও দেবিদ্বার উপজেলায় প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী ৪৪ প্রার্থীর মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ করা হয়েছে। আজ সোমবার সকাল ১১টায় জেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয়ে রিটার্নিং কর্মকর্তা মোহাম্মদ দেলোয়ার হোসেন প্রার্থীদের হাতে প্রতীক তুলে দেন। মুরাদনগর উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে লড়ছেন তিনজন, বুড়িচং উপজেলায় চারজন, ব্রাক্ষনপাড়া উপজেলায় চারজন ও দেবিদ্বার উপজেলায় তিনজন। এছাড়া চার উপজেলায় ভাইস-চেয়ারম্যান পদে ১৭ জন ও মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান পদে ১৩ জন নির্বাচনে চূড়ান্তভাবে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন। রিটার্নিং কর্মকর্তা দেলোয়ার হোসেন প্রার্থীদের উদ্দেশ্যে জানান, প্রতীক পাবার পর থেকে প্রার্থীরা সবাইকে নির্বাচনী বেছে নিষেধ মেনে প্রচার-প্রচারণা চালাতে হবে। নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙ্গ করা হলে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। যেহেতু জনপ্রতিনিধি নির্বাচন তাই প্রার্থীদেরকে সাধারণ মানুষের যেন কোন ভোগান্তি না হয় সে ব্যাপারে নিজেদেরই সচেষ্ট থাকতে হবে। কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলা থেকে চেয়ারম্যান প্রার্থী ঘোড়া প্রতিকের আবু তৈয়ব অপি জানান, আমি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের একজন কর্মী। তবে আমি দল-মত নির্বিশেষে ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার সকলের সেবা করতে চাই। আমার বাবা ও চাচাও এই উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ছিলেন। আশা করি ব্রাহ্মণপাড়া বাসী আমাকে দিয়ে নির্বাচিত করবেন। মুরাদনগর উপজেলার থেকে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আনারস প্রতীকের আহসানুল আলম কিশোর জানান, এবার দলীয় প্রতীক ছাড়াই নির্বাচন হচ্ছে। সাধারণ মানুষ একজন প্রার্থী নিজস্ব গুণাবলীর দিকেই বেশি প্রাধান্য দিবেন। আমি বর্তমানেও চেয়ারম্যান আছি, মানুষের সেবা করে যাচ্ছি। তাই আমি মনে করি মুরাদনগরবাসী আমাকে আবারও চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী করবেন। প্রতিক বরাদ্ধের পর মাঠে প্রচারনা শুরু করেছেন প্রার্থীরা। উল্লেখ্য, এ চার উপজেলায় ভোট ২৯ মে।

Leave a Reply